রবিবার ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম >>

সাকিবদের হারিয়ে আইপিএলের ফাইনালে চেন্নাই

  |   মঙ্গলবার, ২২ মে ২০১৮ | 341 বার পঠিত | প্রিন্ট

সাকিবদের হারিয়ে আইপিএলের ফাইনালে চেন্নাই
  1. শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে সানরাইজার্স হায়দরাবাদকে ২ উইকেটে হারিয়ে আইপিএলের ফাইনালে উঠে গেল চেন্নাই সুপার কিংস। ফাফ ডুপ্লেসিসের একার লড়াইয়ে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় চেন্নাই।

নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়ে কোণঠাসা হয়ে পড়া চেন্নাইকে একাই টেনে তুলেন চেন্নাইয়ের দক্ষিণ আফ্রিকান ওপেনার প্লেসিস।৪২ বলে চার ছয় ও পাঁচ বাউন্ডারির সাহায্যে ৬৭রানের লড়াকু ইনিংস খেলে দলের জয় নিশ্চিত করেন চেন্নাইয়ের এ ওপেনার।

আইপিএলের কোয়ালিফায়ার ম্যাচে আগে ব্যাট করে ৭ উইকেটে ১৩৯ রান সংগ্রহ করে হায়দরাবাদ। টার্গেট তাড়া করতে নেমে ফাফ ডু প্লেসিসের ৬৭ রানের হার না মানা ইনিংসে ভর করে জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে যায় চেন্নাই।


অঘোষিত ‘ফাইনাল’ ম্যাচে চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়তে পারেনি সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। ১৩৯ রান করা হায়দরাবাদকেও জয়ের স্বপ্ন দেখাচ্ছেন বোলাররা। কিন্তু সেই চাপ আর অব্যহত রাখতে না পারায় হেরে যায় হায়দরাবাদ।

ইনিংসের শুরুতে হায়দরাবাদকে ব্রেক থ্রু এনে দেন ভুবেনেশ্বর কুমার। স্কোর বোর্ডে কোনো রান তোলার আগেই চেন্নাইয়ের অস্ট্রেলিয়ান ওপেনার শেন ওয়াটসনকে ফেরান ভুবেনেশ্বর।


এরপর চেন্নাইয়ের শিবিরে আঘাত হানেন সিদ্ধার্থ কোল। এই পেস বোলারের গতির সামনে দাঁড়াতেই পারেননি সুরেশ রায়না ও আম্বাতি রাইডু। ইনিংসের চতুর্থ ওভারে পরপর দুই বলে রায়না-রাইডুকে ফেরান হায়দরাবাদের এই মিডিয়াম ফাস্ট বোলার।

২৪ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে চাপের মধ্যে পড়ে যাওয়া চেন্নাইকে ফের বিপদে ঠেলে দেন হায়দরাবাদের লেগ স্পিনার রশিদ খান।


দলীয় ৩৯ রানে চেন্নাইয়ের অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনিকে ফেরান আফগান এ তারকা ক্রিকেটার। ১৮ রানের ব্যবধানে চেন্নাইয়ের ক্যারিবিয় অলরাউন্ডারকেও সাজঘরের পথ দেখিয়ে দেন রশিদ খান।

১৩তম ওভারে বোলিংয়ে এসে চেন্নাইয়ের নতুন ব্যাটসম্যান রবিন্দ্র জাদেজাকে ফেরান সন্দীপ শর্মা।

একের পর এক উইকেট পড়তে দেখে হাত খুলে খেলেন উইকেটের অন্য প্রান্তের ব্যাটসম্যান ফাফ ডু প্লেসিস। ১৪ত ওভারে সাকিব আল হাসানকে এক ছয় এবং এক বাউন্ডারি হাঁকিয়ে ১৪ রান আদায় করেন নেন চেন্নাইয়ের এ আফ্রিকান।

১৫তম ওখারে বোলিয়ে এসে চাহারকে, ব্রাথওয়েটের দুর্দান্ত ক্যাচে পরিনত করেন সন্দীপ শর্মা। ১৫ ওভারে ৯২ রানে ৭ উইকেট হারিয়ে চরম বিপদে পড়ে যায় চেন্নাই।

১৬ত ওভারের প্রথম বলে ফাফ ডু প্লেসিসকে এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলেন হায়দরাবাদের লেগ স্পিনার রশিদ খান। যদিও রিভিউ নিয়ে বেঁচে যান তিনি। ডু প্লেসিসের নতুন জীবন পাওয়ার মধ্য দিয়ে প্রাণ ফিরে পায় চেন্নাই।

এর আগে ব্যাটিংয়ে নেমে ৭ উইকেটে ১৩৯ রানে গুটিয়ে যায় সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষ দল হায়দরাবাদের এমন করুণ পরিণতি দেখতে হবে তা কেউ আঁচ করতে পারেননি। চেন্নাই সুপার কিংসের বোলারদের সামনে হায়দরাবাদের ব্যাটসম্যানদের এমন অসহায় আত্মসমর্পণ দেখে অবাকই হয়েছেন আইপিএল ভক্তরা।

আইপিএলের চলমান ১১তম আসরে ধারাবাহিক পারফর্ম করে যাওয়া দলটিকে কোয়ালিফায়ারের মতো গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে গিয়ে এভাবে আত্মসমর্পণ করতে হবে তা কেউই আঁচ করতে পারেননি।

মঙ্গলবার অঘোষিত ফাইনালে খেলতে নেমে বালুর বাঁধের মতো ভেঙে যায় সানরাইজার্স হায়দরাবাদের ব্যাটিং লাইনআপ। একের পর এক উইকেট হারিয়ে কার্যত ম্যাচ থেকে ছিটকে যায় কেন উইলিয়ামনে নেতৃত্বাধীন দলটি।

তবে ব্যতিক্রম ছিলেন কার্লোস ব্রাথওয়েট। ব্যাটিং বিপর্যয়ের দিনে প্রতিরোধ গড়ে তোলেন এই ক্যারিবিয়ান। তার ২৮ বলে চার ছক্কায় গড়া ৪৩ রানের অপরাজিত ইনিংসে ভর করে ৭ উইকেটে ১৩৯ রান তুলে হায়দরাবাদ।

চেন্নাইয়ের হয়ে ৪ ওভারে ২৫ রানে দুই উইকেট নেন ডুয়াইন ব্রাভো। এছাড়া বাকি চার বোলার চাহার, লুঙ্গি, জাদেজা ও শারদুল ঠাকুর একটি করে উইকেট নেন।

মঙ্গলবার মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড় স্টেডিয়ামে টসে জিতে হায়দরাবাদকে আগে ব্যাটিংয়ে পাঠান চেন্নাই সুপার কিংসের অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি।

দুর্ভাগ্য শেখর ধাওয়ানের, দীপক চাহারের গতির বলে ভেঙে গেলে উইকেট। ইনিংসের প্রথম বলেই বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফেরেন হায়দরাবাদের এ ওপেনার।

নিশ্চিত রান আউট হওয়া থেকে প্রাণে রক্ষা পেয়েও নিজের ইনিংসটাকে লম্বা করতে পারেননি গোস্বামী। লুঙ্গি এনগিডির বলে তার হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন ১২ রান করা গোস্বামী।

৩৪ রানে দুই ওপেনারের উইকেট হারিয়ে চাপের মুখে পড়ে যাওয়া দলটিকে খেলায় ফেরানোর আগেই বিপদে পড়ে যান অধিনায়ক কেন উইলিয়ামস।

শারদুল ঠাকুরের বলে উইকেটকিপার মহেন্দ্র সিং ধোনির হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন উলিয়ামসন।

দায়িত্ব নিয়ে ব্যাট করতে পারেননি সাকিব আল হাসানও। ৩৬ রানে তিন উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে যাওয়া হায়দরাবাদকে খেলায় ফেরাতে পারেননি সাকিব। দলকে বিপদে ফেলেই মাঠ ছাড়েন এ অলরাউন্ডার।

ডুয়াইন ব্রাভোর বলে খোঁচা দিতে গিয়ে মহেন্দ্র সিং ধোনির হাতে ক্যাচ তুলে দেন সাকিব। ফেরেন ১০ বলে ১২ রান করে।

৬.৪ ওভারে ৫০ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে চরম ব্যাটিং বিপর্যপয়ে পড়ে যায় সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। শেখর ধাওয়ান, শ্রীভিও গোস্বামী, অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনের পর সাজঘরে ফেরেন সাকিব আল হাসান। প্রথম সারির চারজন ব্যাটসম্যানের উইকেট হারিয়ে কোণঠাসা হয়ে যায় হায়দরাবাদ।

Facebook Comments Box

Posted ৫:৩১ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, ২২ মে ২০১৮

Akhaurar Alo 24 |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০  
মোঃ সাইফুল ইসলাম সম্পাদক
বার্তা ও সম্পাদকীয় কার্যালয়

আখাউড়া, ব্রাহ্মণবাড়িয়া

E-mail: info@akhauraralo24.com